২১শে আগস্ট, ২০১৮ ইং, ৬ই ভাদ্র, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, ১০ই জিলহজ্জ, ১৪৩৯ হিজরী

অজ্ঞাত হিসেবে দাফনের পর জানা গেলো তারা মা-মেয়ে

ফেব্রুয়ারি ১৮, ২০১৮, সময় ৫:০৭ অপরাহ্ণ

হত্যার পর মা-মেয়ের মরদেহ নদীতে ভাসিয়ে দেয় দুর্বৃত্তরা। সাতক্ষীরার দেবহাটার ইছামতি নদীর নওয়াপাড়ার ছুটিপুর সীমান্ত থেকে গত সোমবার উদ্ধার হয় অজ্ঞাত পরিচয় এক কন্যা শিশুর মরদেহ। এরপর বুধবার সাতক্ষীরার কালিগঞ্জের কালিন্দি নদীর চর থেকে বোরকা পরিহিত এক নারীর মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। পরে তাদের উভয়কে অজ্ঞাত পরিচয় দেখিয়ে একই স্থানে দাফন করা হয়।

পরে জানা গেছে তারা ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার যাদবপুর গ্রামের বাসিন্দা মুছা শেখের স্ত্রী রিপ্না আক্তার (২২) ও তাদের মেয়ে মুন্নি আক্তার (৪)।

এ বিষয়ে কালিগঞ্জ থানার ওসি সুবীর দত্ত জাগো নিউজকে জানান, প্রথম পর্যায়ে মরদেহ দুটির পরিচয় না পাওয়ায় সাতক্ষীরা পৌরসভা এলাকার সরকারি কবরস্থানে তাদের একই জায়গায় দাফন করা হয়। এরপর বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হওয়ার পর তাদের পরিচয় জানা গেছে।

তিনি আরও জানান, মরদেহ উদ্ধারের পর পুলিশ বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামাদের বিরুদ্ধে মামলা করে। এরপর পুলিশ তদন্তে নামে। পরবর্তীতে জানা যায় উদ্ধার হওয়া নারী ও শিশুটি সম্পর্কে মা-মেয়ে।