২১শে আগস্ট, ২০১৮ ইং, ৬ই ভাদ্র, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, ১০ই জিলহজ্জ, ১৪৩৯ হিজরী

‘আসামের ঘটনায় বাংলাদেশে পুশব্যাক হবে না’

আগস্ট ৮, ২০১৮, সময় ৮:৫৭ পূর্বাহ্ণ

ভারতের আসাম রাজ্যে নতুন করে নাগরিক পঞ্জী (এনআরসি) প্রকাশের পর প্রায় ৪১ লাখ লোক রাষ্ট্রহীন হয়ে পড়েছে। যাদের বেশির ভাগই মুসলিম। কিন্তু এর প্রভাব বাংলাদেশের ওপর পড়বে না, অর্থাৎ এসব লোককে বাংলাদেশে পুশব্যাক করা হবে না নিশ্চয়তা দিয়েছে ভারত সরকার। বাংলাদেশ তরিকত ফেডারেশনের চেয়ারম্যান ও সংসদ সদস্য সৈয়দ নজিবুল বশর মাইজভান্ডারি এ কথা জানিয়েছেন।

ভারতের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী প্রতিমন্ত্রী কিরেন রিজিজু এবং পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী এম জে আকবর তাকে এমন নিশ্চয়তা দিয়েছেন।

প্রসঙ্গত, ভারত সরকারের আমন্ত্রণে সোমবার প্রথমবারের মতো দেশটি সফরে গেছেন সুফি আদর্শের এ রাজনীতিক। তিন দিনের সফরে ইতোমধ্যে রিজিজু ও এম জে আকবার ছাড়াও বেশ কিছু রাজনীতিক ও থিঙ্ক ট্যাঙ্কের সঙ্গে তার বৈঠক হয়েছে।

টাইমস অব ইন্ডিয়াকে নজিবুল বশর জানান, ভারতীয় দুই প্রতিমন্ত্রী বৈঠকে তাকে বলেছেন, ‘এনআরসি ভারতের অভ্যন্তরীণ ব্যাপার। মোদি সরকারের পক্ষ থেকে আমাদের নিশ্চয়তা দেওয়া হয়েছে যে, বাংলাদেশে কাউকে পুশব্যাক করা হবে না।’

তরিকত ফেডারেশনের চেয়ারম্যান বলেন, বৈঠকে তিস্তার পানি বণ্টনের বিষয়ে তাকে বলা হয়েছে, যেহেতু মমতা ব্যানার্জি (পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী) শুরু থেকেই বিষয়টিতে বিরোধিতা করে আসছেন সেহেতু বাংলাদেশের সঙ্গে কীভাবে তিস্তার পানি ভাগাভাগি করা যায় তার উপায় নিয়ে কাজ করছে ভারত সরকার।

উল্লেখ্য, গত ৩০ জুলাই আসাম সরকার জাতীয় নাগরিক পঞ্জী প্রকাশ করে। এতে প্রায় ৪১ লাখ লোককে বহিরাগত হিসেবে চিহ্নিত করা হয়। ভারতের ক্ষমতাসীন বিজেপি সরকারের মন্ত্রী ও দেশটির অন্যান্য রাজনীতিকরা বলছেন, যাদের নাম বাদ পড়েছে তাদের বেশির ভাগই বাংলাদেশি।