Home / Uncategorized / ডু প্লেসির ব্যাটে জাদু, ফাইনালে চেন্নাই

ডু প্লেসির ব্যাটে জাদু, ফাইনালে চেন্নাই

সানরাইজার্সের পুঁজি ছিলো মাত্র ১৩৯ রানের। এ রকম পুঁজি টি-টোয়েন্টিতে উড়ে যায় এক ফুৎকারেই। চেন্নাইও হয়তো সেই স্বপ্নই দেখেছিলো। কিন্তু আসলে তা হয়নি। ফ্যাফ ডু প্লেসির ব্যাটে চড়ে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) একাদশ আসরের প্রথম কোয়ালিফায়ার জিতে ফাইনালে উঠলেও, চেন্নাইয়ের ঘাম ঠিকই ছুটে গেছে।

csk beats srh to go to final of ipl 2018

১৪০ রানের লক্ষ্য পূরণ করতে গিয়ে ৩৯ রানের চার উইকেট হারিয়ে বসে চেন্নাই। প্রথম উইকেট যায় শূন্য রানে। এই ম্যাচ দিয়ে একাদশে ফেরা শেন ওয়াটসন কোনো রানই করতে পারেননি। এরপর দ্বিতীয় উইকেটে ২৪ রান তুলে চেন্নাই এবং এর পরই জোড়া আঘাত হানেন আইপিএল মাতাতে থাকা সিদ্ধার্থ কাউল তিনি ফেরান সুরেশ রায়না ও আম্বাতি রাইডুকে। পরে সম্মিলিত মাত্র ১৯ রান করে ফেরেন এমএস ধোনি, ডোয়াইন ব্রাভো ও রবিন্দ্র জাদেজা। এভাবেই ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ তুলে নেয় হায়দরাবাদ। কিন্তু অন্য প্রান্তে তাদের পথের কাঁটা হয়ে তখনও ক্রিজে আছেন ডু প্লেসি।

সানরাইজার্সের হয়ে চার ওভারে মাত্র ১১ রান দেন রশিদ খান। তুলে নেন দুটি উইকেট। দুটি করে উইকেট নেন সন্দিপ শর্মা ও সিদ্ধান্ত কাউলও। কিন্তু ম্যাচ শেষে তাদের থাকতে হয় পরাজিত দলেই। লিগ পর্বে ১৫০-এর কম পুঁজি নিয়ে তিনটি ম্যাচ জিতেছে হায়দরাবাদ। সেই ধারা অব্যাহত থাকতে পারতো এই ম্যচেও, কিন্তু… ডু প্লেসি যে ছিলেন!

csk beats srh to go to final of ipl 2018 1

সেরা পারফর্ম্যান্স

এক প্রান্ত দিয়ে সতীর্থদের যাওয়া আসা দেখতে থাকলেও ডু প্লেসি নিজের কাজে ছিলেন অবিচল। ১৮ তম ওভারে গিয়ে কার্লোস ব্রাফেটের উপর দিয়ে ঝড় বইয়ে দেয়ার আগে তিনি ছিলেন শান্তই। কিন্তু ওভারে ব্রাফেটকে তিন চার ও এক ছয় মেরে ম্যাচই বের করে নেন তিনি।
শেষ তিন ওভারে চেন্নাইয়ের দরকার ছিলো ৪৩ রান। ১৮ তম ওভারে ২০ রান নিয়ে শেষ দুই ওভারের চাপ কমিয়ে দেন ডু প্লেসি। পরের কাজের বেশির ভাগ করে দেন শার্দুল ঠাকুর। যদিও ২০তম ওভারের প্রথম বলে ছয় মেরে কাজ শেষ করেন ডু প্লেসিই। ৪২ বলে ৬৭ রান করে অপরাজিত থাকা ডু প্লেসিই এই ম্যাচের নায়ক। পাঁচ বলে ১৫ রান করা শার্দুলও পার্শ্বনায়ক হিসেবে অনায়াসে ডু প্লেসির পাশে নিজের নাম দাবি করতে পারেন!

অথচ…

লিগ পর্বে মুম্বাইয়ের বিপক্ষে ১১৮ রানের পুঁজি নিয়ে হায়দরাবাদ জিতে ৩১ রানে। ১৩২ রান নিয়ে ১৩ রানে তারা জয় পায় কিংস এলিভেন পাঞ্জাবের বিপক্ষে। রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্ব ব্যাঙ্গালুরু বিপক্ষে রশিদ খানরা পাঁচ রানে জিতে যান মাত্র ১৪৬ রানের পুঁজি নিয়ে। এ ছাড়া রাজস্থানের বিপক্ষে ১৫১ রানের পুঁজি নিয়ে ১১ রানে জেতার ইতিহাসও ছিলো তাদের। ওই ম্যাচগুলোতে হায়দরাবাদ বারবার প্রমাণ করেছে, তাদের ব্যাটিং বিভাগ ডাকসাইটে না হলেও বোলিং দিয়ে তারা এই আইপিএল জিতে নেয়ার ক্ষমতা রাখে।

লিগ পর্বের ওই রকম বোলিংয়ের কারণে কোয়ালিফায়ারে মাত্র ১৩৯ রানের পুঁজি পাওয়ার পরও হয়দরাবাদের পক্ষে বাজির দর বেশিই থাকার কথা ছিলো এবং সেটা কেনো, বোলিংয়ে প্রায় প্রমাণই করে দিচ্ছিলেন রশিদ খানরা। কিন্তু… ডু প্লেসি যে ছিলেন!

প্রথম ইনিংস

ম্যাচটা যে হায়দরাবাদের জন্য সহজ হচ্ছে না, সেটা ম্যাচের প্রথম বলেই প্রমাণ হয়ে যায়। জুযবেন্দ্র চাহালের বলের কিছুই না বুঝে যখন বোল্ড হয়ে ফেরেন হায়দরাবাদের অন্যতম ভরসা শেখর ধাওয়ান। ড্রেসিংরুমে তিনি বসতে না বসতেই শ্রিভাটস গোস্বামী ও মানিষ পান্ডেও। ব্যাট হাতে হতাশ করেন কেউ উইলিয়ামসনও। দুর্দান্ত শুরুর পরও ২৪ রানের বেশি নিতে পারেননি। হতাশ করেন সাকিব আল হাসানও। ১০ বলে ১২ করে ফেরেন তিনি। এবারের আইপিএলে সাকিবের ব্যাটসম্যান সত্তার দেখা মিললোই না বলতে গেলে। সব মিলিয়ে ১৩৯ রানের বেশি করতে পারেনি হায়দরাবাদ। ফলটাও তাদের পক্ষে গেলো না।

কী হবে সানরাইজার্সের

২০১৬ সালের আইপিএল চ্যাম্পিয়নদের এখন কী হবে? কী আর হবে— তাদের এখন তাকিয়ে থাকতে হবে এলিমিনেটর ম্যাচের দিকে। সেখানে কলকাতা নাইট রাইডার্স ও রাজস্থান রয়্যালস মুখোমুখি হবে বুধবার। সেই ম্যাচ যারা জিতবে, দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে তাদের বিপক্ষে খেলতে হবে সানরাইজার্সকে। সেখানে জিততে পারলে মিলবে ফাইনালের টিকিট। লিগ পর্বের শেষ তিন ম্যাচের পর প্রথম কোয়ালিফায়ারেও হেরে যাওয়া হায়দরাবাদের সেই ফাইনালের টিকিট জয় করার আত্মবিশ্বাস থাকলো তো?

About myadmin

Check Also

রোজার নিয়ত ও ইফতারের দোয়া

রোজা বা সিয়াম ইসলাম ধর্মের পাঁচটি মূল ভিত্তির তৃতীয়। সূর্য উদয় থেকে অস্ত পর্যন্ত সকল …