২১শে আগস্ট, ২০১৮ ইং, ৬ই ভাদ্র, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, ১০ই জিলহজ্জ, ১৪৩৯ হিজরী

ব্রেকিংঃ বিমান দুর্ঘটনা, বেঁচে আছেন মুন্সীগঞ্জের দুই যুবক

মার্চ ১৪, ২০১৮, সময় ৫:৫১ অপরাহ্ণ

নেপালের কাঠমান্ডুতে বিমান দুর্ঘটনায় বিধ্বস্ত বিমানের যাত্রী মুন্সীগঞ্জের টঙ্গিবাড়ীর ইয়াকুব আলী রিপন ও লৌহজংয়ের মো. শাহীন বেপারি বেঁচে আছেন। তারা নেপালের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

ইয়াকুব আলী রিপন টঙ্গীবাড়ি উপজেলার কামারখাড়া ইউনিয়নের বেশনাল গ্রামের ইউনুছ বেপারির ছেলে। তিনি ৬ ভাই-বোনের মধ্যে বড়। প্রায় ৮ বছর আগে আঁখি আক্তারের সাথে তার বিবাহ হয়। দাম্পত্য জীবনে তাদের ইয়ানুর নামের ৬ বছরের একটি মেয়ে সন্তান রয়েছে। স্ত্রী-সন্তান নিয়ে ইয়াকুব ঢাকার মোহাম্মদপুরে বসবাস করে।ন
ইয়াকুব আলী রিপনের ছোট ভাই টিপু বেপারি জানান, মঙ্গলবার আমার ছোট ভাই দিপু বেপারি সরকারি প্রতিনিধি দলের সাথে নেপাল যান। তিনি দুপুর একটার দিকে ফোন করে জানান, আমাদের বড় ভাই ইয়াকুব আলী রিপন নেপালের কাঠমান্ডু এলাকার নবলিব হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। দিপু হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসকের সাথে কথা বলে জানতে পারে বর্তমানে তাদের বড় ভাই রিপন আইসিইউতে আশংকামুক্ত অবস্থায় রয়েছেন।

এদিকে, লৌহজং উপজেলার কলমা ইউনিয়নের বান্দেগাঁও গ্রামের মৃত সাইফুল ইসলামের ছেলে মো. শাহীন বেপারি বিধ্বস্ত বিমান ইউএস বাংলার যাত্রী ছিলেন। বর্তমানে শাহীন বেপারি কাঠমান্ডু মেডিকেল কলেজে সার্জারি বিভাগে চিকিৎসা নিচ্ছেন। শাহীন বেপারি ৬ ভাই বোনের মধ্যে ৪র্থ। ।তিনি বাংলাদেশ শান্তি সংঘের সদস্য ও সদরঘাটের বিক্রমপুর গার্ডেন সিটি মেসার্স করিম এন্ড সন্সের ম্যানেজার। তিনি কোম্পানি থেকে বার্ষিক প্রমোদ ভ্রমণে নেপাল গিয়েছিলেন।

বাংলাদেশ শান্তি সংঘের সভাপতি আলহাজ মো. ইয়াছিন শেখ তার সমস্ত খোজ খবর নিচ্ছেন। মো. শাহীন বেপারির ছোট ভাই চঞ্চল বেপারি ইতিমধ্যে বড় ভাইকে দেখতে নেপালের উদ্দেশ্য রওনা হয়েছেন বলে বাংলাদেশ শান্তি সংঘের সাংগঠনিক সম্পাদক তাজুল ইসলাম রাকীব জানিয়েছেন।