Home / অপরাধ / ‘শেকল দিয়ে বেঁধে আমাকে মারতো, হাতে সুঁই ঢুকিয়ে দিত’ : আটক দম্পতি

‘শেকল দিয়ে বেঁধে আমাকে মারতো, হাতে সুঁই ঢুকিয়ে দিত’ : আটক দম্পতি

নির্যাতন থেকে রেহাই পেতে সোমবার সকালে বাসা থেকে পালিয়ে যায় আশফিয়া। সে বলে, ‘সারাদিন শেকল দিয়ে বেঁধে রাখতো। মারতো, হাতের ভিতর সুঁই ঢুকিয়ে দিত। আমি বলেছি, আমাকে দিয়ে দাও। আমাকে রাখ কেন, কষ্ট দিয়ে এত? আমাকে দিয়ে দিচ্ছিলো না, সেজন্য পালিয়ে গেছি।’

অভিযোগ অস্বীকার করেছে গৃহকর্তা জুয়েল। আর গৃহবধূ দিনা এ বিষয়ে কথা বলতে রাজি হননি। তবে অপর গৃহকর্মী আয়েশা ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছে ভিন্নভাবে।

সে বলে, ‘আপু মারতো একটা কিছু পড়ে গেলে, অন্যায় করলে। আমি ওকে বেশি মারতাম, কারণ ওর আমার সঙ্গে লাগতো। সেজন্য আমি ধরে ধরে মার লাগাতাম ওকে।’

গৃহকর্তা জুয়েল বলে, ‘টর্চার করেছে আমার ওয়াইফ- এটা আমি কখনোই দেখিনি নিজের চোখে। এধরণের কোনোকিছু হয়নি। ওই মেয়েটার সঙ্গে মারামারি হতো। ও কামড় দিতো মেয়েটাকে।’

গৃহবধূ ও গৃহকর্তা- দুজনকেই আটক করেছে পুলিশ।

বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার এস এম রুহুল আমিন বলেন, ‘স্পষ্টই বোঝা যাচ্ছে, বাচ্চাদুটোর উপর নির্যাতন করা হতো। জোর করে আটকে রেখে কাজ করানো- এটাতো সম্পূর্ণ আইনবিরূদ্ধ। তাদের ওপর যে নির্যাতন করা হয়েছে- এর আমরা আইনগত ব্যবস্থা নেব।’

নির্যাতিত গৃহকর্মী আশফিয়া ও অপর গৃহকর্মী আয়েশা- দুজনকেই পাঠানো হয়েছে ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টারে।

About myadmin

Check Also

ব্রেকিংঃ অবশেষে জানা গেল তাসপিয়াকে যেভাবে হত্যা করে আদনানের গ্রুপ

আদনান-তাসপিয়ার প্রেমের সম্পর্ক ভালোভাবে নেয়নি তাসফিয়ার পরিবার। তাই আদনানকে ডেকে শাসায় তারা। আর এটাকে ভালোভাবে …